অপহরণের পর ১৩ তুর্কি নাগরিককে হত্যা! - Southeast Asia Journal

অপহরণের পর ১৩ তুর্কি নাগরিককে হত্যা!

“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

তুরস্কে নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন কুর্দিস্তান ওয়ার্কাস পার্টির (পিকেকে) সদস্যদের হাতে অপহৃত ১৩ তুর্কির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে বলে জানিয়েছে তুরস্ক। তুরস্কের সরকারি কর্মকর্তাদের বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স গত রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) জানায়, উত্তর ইরাকের একটি গুহায় তাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। যাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে তাদের মধ্যে সেনা ও পুলিশ সদস্যরাও রয়েছেন।

তুরস্কের প্রতিরক্ষামন্ত্রী হুলুসি আকার এক বিবৃতিতে জানান জানান, অপহৃত তুর্কিদের মধ্যে ১২ জনকে মাথায় ও একজনকে কাঁধে গুলি করে মারা হয়েছে। তুরস্কের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় মালাটিয়া প্রদেশের গভর্নর জানিয়েছেন, ওই গুহায় নিহতদের মধ্যে ছয়জন সেনা ও দুই পুলিশ কর্মকর্তা রয়েছেন যাদের ২০১৫ ও ২০১৬ সালে দুটি পৃথক ঘটনায় অপহরণ করা হয়েছিল। নিহতদের মধ্যে তিনজনের পরিচয় এখনও শনাক্ত করা যায়নি।

নিহতদের মধ্যে তুরস্কের গোয়েন্দা কর্মীরাও রয়েছেন বলে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন। এদিকে পিকেকের ওয়েবসাইটে দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ওই এলাকায় সংঘর্ষ চলাকালে তাদের কাছে থাকা কিছু বন্দি মারা গেছেন যাদের মধ্যে তুরস্কের গোয়েন্দা, পুলিশ ও সামরিক বাহিনীর সদস্যরা রয়েছেন। তারা কখনও কোনো বন্দিকে আঘাত করেনি বলে দাবি করেছে গোষ্ঠীটি।

১৯৮৪ সাল থেকে তুরস্কের কুর্দি অধ্যুষিত দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে সশস্ত্র বিদ্রোহ শুরু করে পিকেকে। তারপর থেকে ওই অঞ্চলে তুরস্কের নিরাপত্তা বাহিনী ও বিদ্রোহীদের মধ্যে লড়াইয়ে এ পর্যন্ত ৪০ হাজারেরও বেশি লোক নিহত হয়েছে।