পাকিস্তানের নিরাপত্তা-আঞ্চলিক অখণ্ডতা নিয়ে কোনও আপস হবে না: আলভি - Southeast Asia Journal

পাকিস্তানের নিরাপত্তা-আঞ্চলিক অখণ্ডতা নিয়ে কোনও আপস হবে না: আলভি

“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

পাকিস্তান তার জাতীয় নিরাপত্তা এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতার সাথে আপস করবে না বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ড. আরিফ আলভি। একইসঙ্গে পাকিস্তান সকল রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্ব, আঞ্চলিক অখণ্ডতাকে সম্মান করে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

প্রতিবেশী দেশ ইরানের সঙ্গে সৃষ্ট নজিরবিহীন উত্তেজনা ও পরস্পরের ভূখণ্ডে পাল্টাপাল্টি হামলার পর প্রেসিডেন্ট আলভি এসব কথা বলেন। বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা আনাদোলু।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি বৃহস্পতিবার বলেছেন- তার দেশ সমস্ত রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতাকে সম্পূর্ণরূপে সম্মান করে এবং অন্যান্য দেশের কাছ থেকেও এটি আশা করে। এর আগে প্রতিবেশী দেশ ইরানের হামলার পরে ইরানের অভ্যন্তরেও একইভাবে ‘সন্ত্রাসী আস্তানায়’ সামরিক হামলা চালায় পাকিস্তান।

হামলার পর ‘বেসামরিক হতাহতের ঘটনা এড়িয়ে’ কেবল ‘সন্ত্রাসী আস্তানাগুলোকে’ লক্ষ্যবস্তু করার জন্য পাকিস্তানের সশস্ত্র বাহিনীর প্রশংসা করেন প্রেসিডেন্ট আলভি। তিনি বলেন, ‘পাকিস্তান তার জাতীয় নিরাপত্তা এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতার সাথে আপস করবে না এবং তার ভূখণ্ড রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেবে।’

পরমাণু শক্তিধর এই দেশটির প্রেসিডেন্ট সন্ত্রাসবাদকে একটি অভিন্ন চ্যালেঞ্জ হিসেবে উল্লেখ করে এটি নির্মূলের জন্য বিশ্বব্যাপী প্রচেষ্টার প্রয়োজন’ বলেও অভিহিত করেন।

আলভি বলেন, ‘পাকিস্তান সমস্ত রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতাকে সম্পূর্ণভাবে সম্মান করে এবং আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন না করার জন্য অন্যান্য দেশের কাছ থেকেও একই আচরণ প্রত্যাশা করে। পাকিস্তান ও ইরান ভাতৃপ্রতিম দেশ এবং উভয় দেশের মধ্যে আলোচনা এবং পারস্পরিক পরামর্শের মাধ্যমে সমস্যাগুলোর সমাধান করতে হবে।’

পাকিস্তান বলেছে, তারা ইরানের সিস্তান-বেলুচেস্তান প্রদেশে সন্ত্রাসী আস্তানাগুলোতে ‘অত্যন্ত সমন্বিত এবং বিশেষ লক্ষ্যবস্তুতে নির্ভুল সামরিক হামলা’ চালিয়েছে, এতে বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনী (আইআরজিসি) পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশে বিমান থেকে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়। এই হামলায় বেলুচিস্তানে দুই শিশু নিহত ও আরও কয়েকজন আহত হন বলে পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষ জানায়।

এর জেরে পাকিস্তান ইরান থেকে তার রাষ্ট্রদূতকে প্রত্যাহার করে নেয় এবং তেহরানের সাথে উচ্চ পর্যায়ের সফরও স্থগিত করে। এছাড়া হামলার সেই ঘটনার পর ইসলামাবাদে নিযুক্ত তেহরানের রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারও করে পাকিস্তান।