রাখাইনে আরেকটি সেনা ব্যাটালিয়ন দখলে নিল আরাকান আর্মি - Southeast Asia Journal

রাখাইনে আরেকটি সেনা ব্যাটালিয়ন দখলে নিল আরাকান আর্মি

রাখাইনে আরেকটি সেনা ব্যাটালিয়ন দখলে নিল আরাকান আর্মি
“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

আরাকান আর্মি জানিয়েছে, বাংলাদেশের সীমান্তসংলগ্ন মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের ঐতিহাসিক মারুক–ইউ শহরে বেশ কয়েক দিন লড়াইয়ের পর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর একটি পদাতিক ব্যাটালিয়ন (লাইট ইনফ্যান্ট্রি ব্যাটালিয়ন–এলআইবি) ৫৪০–এর যোদ্ধাদের পরাজিত করেছেন তারা। এই এলাকায় এলআইবি ৩৭৭ ও ৭৭৮ ঘাঁটিগুলোও ঘিরে রেখেছেন তারা। সূত্র: ইরাবতী

আরাকান আর্মি স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাত পৌনে ১২টায় এলআইবি ৫৪০ এর সদরদপ্তর পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। তারা এখন বাকি দুটি সেনাঘাঁটি ও শহরের অন্যান্য তল্লাশিচৌকি নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার চেষ্টা করছে। লড়াইয়ে টিকতে না পেরে বহু মিয়ানমার সেনা ও সীমান্ত রক্ষী সীমান্ত পার হয়ে ভারত ও বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে।

আরাকান আর্মি হলো মিয়ানমারের জান্তা সরকার উৎখাতে লড়াইরত কয়েকটি সংগঠনের জোট। এখানে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স আর্মি (এমএনডিএএ) এবং টা আং ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মি (টিএনএলএ) এর মতো সংগঠনের যোদ্ধারা রয়েছেন। গত বছর ২৭ অক্টোবরে অপারেশন ১০২৭ নামে জান্তাবিরোধী অভিযান শুরু করেছে আরাকান আর্মি। এরপর থেকে তারা উত্তরাঞ্চলীয় শান রাজ্যের বেশির ভাগ এলাকা দখল করে নিয়েছে। তার মধ্যে ২০টি শহর এবং চীনের সঙ্গে বাণিজ্যের গুরুত্বপূর্ণ পথ রয়েছে।

চীনের মধ্যস্থতায় মিয়ানমার সরকারের সঙ্গে হওয়া যুদ্ধবিরতি চুক্তির আওতায় জানুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে হামলা বন্ধ রেখেছিল আরাকান আর্মি। অবশ্য অপারেশন ১০২৭ এর আওতায় ১৩ নভেম্বর থেকে উত্তর রাখাইন ও পাশের চিন রাজ্যের পালেতোয়ায় বড় ধরনের আক্রমণ চালিয়ে আসছে আরাকান আর্মি। এ ছাড়া কাচিন প্রদেশ ও সাগায়িং অঞ্চলে মিয়ানমারের জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য শক্তিশালী কাচিন ইনডিপেনডেন্স আর্মি (কেআইএ) ও পিপলস ডিফেন্স ফোর্সেসের (পিডিএফএস) সঙ্গে যুক্ততা রয়েছে আরাকান আর্মির। আরাকান আর্মি জানিয়েছে, গত বুধবার রাখাইন রাজ্যের উপকূলীয় রামরি এলাকায় জান্তা বাহিনীর সঙ্গে তাদের লড়াই হয়। বঙ্গোপসাগরের ওই দ্বীপ শহরে আরাকান আর্মির যোদ্ধারা ঢোকার পর সেখানে জান্তা বাহিনীর অস্ত্র, গোলাবারুদ ও সৈনিকদের মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখেন।

সম্মুখযুদ্ধে পিছু হটার পর জান্তা বাহিনী বিমান ও গানবোট নিয়ে বুধবার রামরিতে হামলা চালায়। বুধবার সকালে রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিত্তের কাছেও গোলাগুলি হয়। জান্তা বাহিনীর সদস্যরা যুদ্ধক্ষেত্র থেকে পিছু হটে অং জায়া ও অং মিয়াই গ্রামের মধ্যবর্তী একটি এলাকায় আশ্রয় নেন। সেখানে পদাতিক বাহিনী ও বিমানবাহিনীর সহায়তা নেন তারা। এ ছাড়া রাখাইনের মিনবিয়া, কিয়াউকটাও ও রথেডং শহরেও জান্তা বাহিনীর সঙ্গে বিদ্রোহীদের লড়াই চলছে।আরাকান আর্মি ১৩ নভেম্বর রাখাইনে অপারেশন ১০২৭ শুরু করার পর সিত্তের নিকটবর্তী পাউকতাও শহর এবং চিন রাজ্যের পালেতাওয়া শহরসহ ১৬০টি অবস্থান থেকে মিয়ানমার বাহিনীকে উৎখাত করেছে।

  • আন্তর্জাতিক অন্যান্য খবর জানতে এখানে ক্লিক করুন।
  • ফেসবুকে আমাদের ফলো দিয়ে সর্বশেষ সংবাদের সাথে থাকুন।