গাজা সীমান্ত পরিদর্শন করবেন জাতিসঙ্ঘ প্রধান - Southeast Asia Journal

গাজা সীমান্ত পরিদর্শন করবেন জাতিসঙ্ঘ প্রধান

গাজা সীমান্ত পরিদর্শন করবেন জাতিসঙ্ঘ প্রধান
“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

জাতিসঙ্ঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস শনিবার মিসরের গাজা সীমান্ত পরিদর্শন করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

ইসরাইল বলেছে, তারা হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে রাফাহ শহরের কাছাকাছি সৈন্য পাঠাবে, এমনকি মার্কিন সমর্থন ছাড়াই।

ইসরাইলের এই বক্তব্যের পরেই জাতিসঙ্ঘ প্রধান এই সফরে যাচ্ছেন।

সফরের সময় গুতেরেস মানবিক যুদ্ধবিরতির জন্য তার আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করার পরিকল্পনা করেছেন।

যদিও রাফাতে পরিকল্পিত স্থল আক্রমণ থেকে ইসরাইলকে বিরত রাখার আন্তর্জাতিক চাপ এখন পর্যন্ত ব্যর্থ হয়েছে। রাফাতে গাজার বেশিভাগ মানুষ আশ্রয় নিয়েছে।

এই ধরনের আক্রমণ ব্যাপক বেসামরিক হতাহতের কারণ হবে এবং ভূখণ্ডের মানবিক সঙ্কটকে আরো খারাপ করবে এমন সতর্কতা সত্ত্বেও ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বলেছেন, তাকে অবশ্যই হামলার সাথে এগিয়ে যেতে হবে।

সফররত মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেনকে শুক্রবার নেতানিয়াহু বলেন, ‘আমি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থনে এটি করতে আশা করি, তবে যদি আমাদের প্রয়োজন হয়, আমরা একাই এটা করব।’

প্রায় ছয় মাসের লড়াই থামানোর আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টা বেড়েছে।

হামাস পরিচালিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, শুক্রবার পর্যন্ত গাজায় ৩২ হাজার ৭০ জন নিহত হয়েছে।

বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করেছেন, গাজা সমগ্র জনসংখ্যা দুর্ভিক্ষের দ্বারপ্রান্তে।

মন্ত্রণালয় শুক্রবার রাতে গাজা শহরের উত্তরে একটি বাড়িতে হামলায় ১০ জনসহ শনিবার সকাল পর্যন্ত আরো ৬৭ জন নিহতের খবর দিয়েছে।

ফিলিস্তিনে জাতিসঙ্ঘের ত্রাণ ও শরণার্থী সংস্থার (ইউএনআরডব্লিউএ) প্রধান ফিলিপ লাজারিনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে (সাবেক টুইটার) লেখেন, ‘এটি একটি মানবসৃষ্ট বিপর্যয়।’

তিনি বলেন, ‘যুদ্ধবিরতি এবং গাজায় ব্যাপক খাদ্য ও জীবনরক্ষাকারী পণ্য সরবরাহ ছিল এর একমাত্র সমাধান।’

শুক্রবার জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদে যুদ্ধবিরতি প্রস্তাব ব্যর্থ হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের আনা এ প্রস্তাবে অস্পষ্টতা এবং ইসরাইলের পক্ষে একতরফা একটি দুর্বল প্রস্তাব হিসেবে রাশিয়া ও চীনের ভেটো প্রদানে প্রস্তাবটি বাতিল হয়ে যায়।

এদিকে, সহিংসতা অব্যাহত রয়েছে, বিশেষ করে গাজার সবচেয়ে বড় এলাকা ঘিরে হাসপাতাল কমপ্লেক্স আল-শিফা, যেখানে শুক্রবার ইসরাইলি বাহিনী ১৫০ জনেরও বেশি ফিলিস্তিনি যোদ্ধাকে হত্যা এবং শতাধিক সন্দেহভাজনকে গ্রেফতারের দাবি করেছে।

  • অন্যান্য খবর জানতে এখানে ক্লিক করুন।
  • ফেসবুকে আমাদের ফলো দিয়ে সর্বশেষ সংবাদের সাথে থাকুন।