বগুড়া থেকে নিখোঁজ একই পরিবারের ৭ জনকে রাঙামাটি থেকে উদ্ধার

বগুড়া থেকে নিখোঁজ একই পরিবারের ৭ জনকে রাঙামাটি থেকে উদ্ধার

বগুড়া থেকে নিখোঁজ একই পরিবারের ৭ জনকে রাঙামাটি থেকে উদ্ধার
“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

বগুড়া থেকে নিখোঁজ এক পরিবারের শিশুসহ সাতজনকে রাঙামাটি থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। আজ মঙ্গলবার পিবিআই বগুড়ার পুলিশ পরিদর্শক (প্রশাসন) জাহিদ হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে, সোমবার দুপুরে রাঙামাটি শহরের চেয়ারম্যানপাড়া এলাকা থেকে তাঁদের উদ্ধার করা হয়। তবে উদ্ধার হওয়া সাতজনকে কেউ অপহরণ করেনি। তাঁরা কাজের সন্ধানে স্বেচ্ছায় সেখানে যান এবং আত্মীয়ের বাড়িতে আশ্রয় নিয়ে কাজের সন্ধান করছিলেন।

উদ্ধার হওয়া সাতজন হলেন ফাতেমা বেবি (৫০) তাঁর ছেলে বিক্রম আলী (১৩) মেয়ে রুনা খাতুন (১৬), বড় মেয়ে রুমি বেগম (৩০) নাতনি বৃষ্টি খাতুন (১৩) এবং যমজ দুই নাতি হাসান (৬) ও হোসেন (৬)।

উদ্ধার হওয়ার পর ফাতেমা বেবি জানান, তাঁদের বাড়ি লালমনিরহাট জেলার খোঁচাবাড়ী এলাকায়। তাঁরা বগুড়া শহরের নারুলীতে ভাড়া বাসায় থাকতেন। ফাতেমা বেবি নারুলী পুলিশ ফাঁড়িতে রান্নার কাজ করতেন। তাঁর বড় মেয়ের জামাই জীবন মিয়া তাঁদের সঙ্গে থেকে বগুড়া শহরে পুরোনো ফ্রিজ বেচাকেনার কাজ করতেন।

ফাতেমা বেবি আরও জানান, তাঁর স্বামী আব্দুর রহমান কখনো বগুড়া শহরে, আবার কখনো লালমনিরহাটে থাকতেন। তাঁর স্বামী ও জামাই টাকার জন্য সব সময় চাপ দিতেন এবং মানসিক নির্যাতন করতেন। এ কারণে তাঁরা নিজের আয়ে স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য পরিকল্পনা করে কাউকে না জানিয়ে গত ৩ জুলাই বগুড়া থেকে পালিয়ে এক আত্মীয়ের বাড়ি রাঙামাটিতে আশ্রয় নেন। সেখানে তাঁরা কাজের সন্ধান করছিলেন।

পুলিশ পরিদর্শক জাহিদ হাসান জানান, গত ৩ জুলাই বগুড়া শহরের নারুলী এলাকা থেকে একই পরিবারের সাতজন নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় গত ৬ জুলাই বগুড়া সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন ফাতেমা বেবির স্বামী আব্দুর রহমান। তথ্যপ্রযুক্তির সহযোগিতায় তাঁদের অবস্থান শনাক্ত করা হয়। পরে পিবিআই বগুড়ার একটি টিম রাঙামাটি জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সহযোগিতায় তাঁদের উদ্ধার করে বগুড়ায় নিয়ে আসে।

  • অন্যান্য খবর জানতে এখানে ক্লিক করুন।
  • ফেসবুকে আমাদের ফলো দিয়ে সর্বশেষ সংবাদের সাথে থাকুন।