বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ভূয়সী প্রশংসা মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্রের প্রেসিডেন্টের

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ভূয়সী প্রশংসা মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্রের প্রেসিডেন্টের

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ভূয়সী প্রশংসা মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্রের প্রেসিডেন্টের
“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্রের প্রেসিডেন্ট ফস্টিন আর্চেঞ্জ তোয়াদেরা এবং দেশটির সেনাবাহিনীর প্রধান জেফেরিন মামাদোর সঙ্গে বৈঠক করেছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চিফ অব জেনারেল স্টাফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকারুজ্জামান।

মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্রের রাজধানী বাঙ্গুইয়ের কাছাই মিলিটারি বেজে মঙ্গলবার (২১ মে) বঙ্গবন্ধু-তোয়াদেরা কমিউনিটি ক্লিনিক উদ্বোধনের পর বৈঠক করেন তারা।

ওয়াকারুজ্জামান বলেন, আলোচনা অত্যন্ত ফলপ্রসূ হয়েছে। দেশটির বাণিজ্য, অবকাঠামোসহ নানা ক্ষেত্রে সম্পর্ক উন্নয়নের বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। বাংলাদেশে আসার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকের রাষ্ট্রপতিকে।

এসময় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ভূয়সী প্রশংসা করে দেশটির রাষ্ট্রপতি তার দেশের সেনাবাহিনীর সঙ্গে কাজ করার আমন্ত্রণও জানিয়েছেন।

বৈঠকে দেশটির তার বাহিনীর সদস্যদের প্রশিক্ষণসহ নানান বিষয় আলোচনায় উঠে আসে। আবার সেনাবাহিনীকে ইউনিফর্ম প্রদান করায় প্রশংসা করেন তিনি।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ভূয়সী প্রশংসা মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্রের প্রেসিডেন্টের

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রতিনিধি দলের প্রধান এসময় সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকের সেনাবাহিনীর প্রধানের হাতে কিছু স্মারকও তুলে দেন। পাঁচ দিনের সফরে দেশটির উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ছাড়াও জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী মিশনের বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বিভিন্ন কন্টিনজেন্ট পরিদর্শন করেন।

এর আগে বাঙ্গুইয়ের কাছাই মিলিটারি বেজে উদ্বোধন করা হয় বঙ্গবন্ধু-তোয়াদেরা কমিউনিটি ক্লিনিক। বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকের প্রেসিডেন্ট ফস্টিন আর্চেঞ্জ তোয়াদেরার নামে নামকরণ করা হয় কমিউনিটি ক্লিনিকটির। উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চিফ অব জেনারেল স্টাফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকারুজ্জামান। এসময় উপস্থিত ছিলেন দেশটির রাষ্ট্রপতিও।

উদ্বোধন শেষে ওয়াকারুজ্জামান বলেন, এ ক্লিনিকের যাত্রার মধ্য দিয়ে শুধু দেশটির সামরিক বাহিনীর সদস্যরা নন, চিকিৎসা সেবা পাবেন সাধারণ জনগণও।

পরে বঙ্গবন্ধু গ্যালারি ঘুরে দেখেন দেশটির রাষ্ট্রপতি, আর্মি চিফসহ উধ্বর্তন কর্মকর্তারা। গ্যালারিতে প্রদর্শন করা হয় বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চের ভাষণ, তার আত্মজীবনীসহ একাধিক গ্রন্থ। বঙ্গবন্ধুর বলিষ্ঠ নেতৃত্ব কীভাবে স্বাধীনতার অল্প সময়ের মধ্যে জাতিসংঘের স্বীকৃতি পেল বাংলাদেশ গ্যালারিতে উঠে আসে সে বিষয়টিও।

গ্যালারিতে প্রদর্শন করা হয় বাংলাদেশের বিভিন্ন রকমের সবজি যা উৎপাদিত হয়েছে সেন্ট্রল আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রের মাটিতে।

এর আগে মঙ্গলবার সকালে সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী মিশনের মিনুস্কা মিশনের ব্যানসেফ বা বাংলাদেশ স্পেশাল ফোর্সে কন্টিনজেন্টের পক্ষ থেকে গার্ড অব অনার প্রদান করা লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকারুজ্জামানকে।

  • অন্যান্য খবর জানতে এখানে ক্লিক করুন।
  • ফেসবুকে আমাদের ফলো দিয়ে সর্বশেষ সংবাদের সাথে থাকুন।