বিলাইছড়িতে বৌদ্ধবিহারে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় জেএসএস জড়িত নয়, জেএসএস (সন্তু)’র প্রতিবাদ - Southeast Asia Journal

বিলাইছড়িতে বৌদ্ধবিহারে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় জেএসএস জড়িত নয়, জেএসএস (সন্তু)’র প্রতিবাদ

“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

গত ১৫ মে মধ্যরাতে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার বিলাইছড়ি উপজেলার বিলাইছড়ি সদর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের অন্তর্গত ধুপশীল গ্রামে অবস্থিত ড. এফ দীপংকর থেরোর ‘ধুপশীল আন্তর্জাতিক বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্র’ নামে বৌদ্ধ বিহারে উপজাতি আঞ্চলিক সশস্ত্র সন্ত্রাসীগোষ্ঠী কর্তৃক অগ্নিকান্ডের ঘটনায় সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জেএসএস দায়ী নয় দাবি করে গণমাধ্যমে একটি বিবৃতি দিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছে সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ। এছাড়া এ ঘটনায় জেএসএসকে ছড়িয়ে সংবাদ প্রকাশেরও তীব্র নিন্দা জানিয়েছে সংগঠনটি।

১৭ মে রবিবার পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সহ তথ্য ও প্রচার সম্পাদক কর্তৃক স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় যে, উক্ত অগ্নিসংযোগের ঘটনায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতিকে জড়িত করে ‘পার্বত্যনিউজ.কম’, ‘সিএইচটিটুডে.কম’, ‘সিএইচটিটাইমস২৪.কম’, ‘তথাগতঅনলাইন.কম’, ‘নিব্বানাটিভি.নেট’ সহ বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে সংবাদ প্রকাশ করা হয়। পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির বিরুদ্ধে এধরনের অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন, কল্পনা-প্রসূত ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য-প্রণোদিত। উক্ত অগ্নিসংযোগের ঘটনার সাথে জনসংহতি সমিতি ও সমিতির কোন কর্মীর জড়িত হওয়ার প্রশ্নই আসে না।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয় যে, জনসংহতি সমিতির ভাবমূর্তিকে ক্ষুন্ন করার জন্য ষড়যন্ত্রমূলকভাবে জনসংহতি সমিতিকে দায়ি করা হচ্ছে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি উক্ত অগ্নিসংযোগের ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করা এবং জনসংহতি সমিতির বিরুদ্ধে বিহারটি অগ্নিসংযোগের ঘটনায় জড়িতকরণের সকল প্রকার অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র বন্ধ করার দাবি জানায়।