লকডাউনের চতুর্থ দিন: রাস্তায় বেরিয়েছেন অনেকে - Southeast Asia Journal

লকডাউনের চতুর্থ দিন: রাস্তায় বেরিয়েছেন অনেকে

“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

কঠোর লকডাউনের চতুর্থ দিনে বাইরে বের হয়েছেন অনেকে। এসময় মুভমেন্ট পাস ছিল না অনেকের কাছেই। পাস পেতে জটিলতা এবং এর সময়সীমা নিয়ে আপত্তি তুলেছেন অনেকেই।

নগরীর বিভিন্ন প্রান্তের সড়কে শনিবার সকাল থেকেই অসংখ্য সিএনজি, রিকশা ও মোটর সাইকেল চলতে দেখা গেছে। এসব গাড়িতে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। একই চিত্র অফিসগামী গাড়িতেও।

প্রথম দিন সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ মোটামুটি বাস্তবায়িত হলেও দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ দিনের লকডাউনে অনেকেই বের হয়েছেন মুভমেন্ট পাস ছাড়া। এ জন্য সার্ভার জটিলতাকে দায়ী করছেন কেউ কেউ। অনেক আবার দিচ্ছেন নানা অজুহাত। তবে যাদের কাছে পাস নেই তাদের উল্টোদিকে ফেরত পাটিয়েছেন। পাশাপাশি যে গাড়ির কাগজপত্র নেই তাদের আনা হচ্ছে আইনের আওতায়।

গার্মেন্টস কর্মী, চিকিৎসক ও ব্যাংক কর্মীদের অফিস আইডি কার্ড দেখে ছেড়ে দিচ্ছে পুলিশ। চলাচলের জন্য মুভমেন্ট পাস আছে কি না দেখতে চাইছেন তারা। না থাকলে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দিচ্ছেন।

তবে মুভমেন্ট পাস পেতে ভোগান্তির অভিযোগ করেছেন অনেকে। দীর্ঘক্ষণ চেষ্টা করেও অ্যাপসে ঢুকতে পারছেন না বলে অভিযোগ তাদের।

রাজধানীর অনেক এলাকায় গলির মুখে বাঁশ দিয়ে চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। গণপরিবহন বন্ধ থাকলেও চলাচল করছে পণ্যবাহী ও জরুরি পরিষেবার কাজে নিয়োজিত গাড়ি। এদিকে শিল্প কারখানা, ব্যাংক, জরুরি সেবা খোলা থাকলেও সড়কে লোকজনের চলাচল অনেক কম।

গণপরিবহন না থাকায় জরুরি প্রয়োজনে বের হওয়া অনেকে পায়ে হেঁটে গন্তব্যের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। তবে চলাচলকারী অনেকেই মানছেন না স্বাস্থ্যবিধি।

এদিকে, রাজধানীর মোড়ে মোড়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের উপস্থিতি ও চেকপোস্ট দেখা গেছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জানিয়েছে, সরকারের প্রজ্ঞাপন বাস্তবায়নে লকডাউনের এ ধারাবাহিকতা ধরে রাখা হবে।