যৌথ অভিযানে আটক সাত জঙ্গি-তিন কেএনএফ সদস্য কারাগারে - Southeast Asia Journal

যৌথ অভিযানে আটক সাত জঙ্গি-তিন কেএনএফ সদস্য কারাগারে

“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার দুর্গম বড়থলি ইউনিয়নে অভিযান চালিয়ে আটক সাত জঙ্গি ও তিন কুকি-চিনের সদস্যকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। শুক্রবার রাত সাতটার দিকে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা আক্তারের আদালতে তাদেরকে হাজির করা হলে আদালত এ আদেশ দেন।

কোর্ট পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক আসাদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সাত জঙ্গি ও তিন কুকি-চিনের সদস্যকে রাঙামাটি চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে বিজ্ঞ আদালত তাদেরকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে। আজকে রিমান্ড চাওয়া হয়নি। দুয়েকদিন পর আবারো আদালতে হাজির করে রিমান্ডের জন্য আবেদন করা হবে।

এর আগে পার্বত্য চট্টগ্রামের বান্দরবান ও রাঙামাটি জেলার সীমান্তবর্তী মিয়ানমার সীমান্তের দুর্গম পাহাড়ি এলাকাগুলোতে র‌্যাবের অভিযানে নতুন জঙ্গি সংগঠন জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বিয়া’ ও কুকি-চিন ন্যাশনাল পার্টির(কেএনএফ) সদস্যদের আটকের পর শুক্রবার সকালে বান্দরবানে সদরে নিয়ে আসা হয়। পরবর্তীতে বিকেলে তাদেরকে র‌্যাব ও পুলিশের প্রহরায় রাঙামাটিতে আনা হয়। সন্ধ্যায় সাতটায় তাদেরকে আদালতে তোলা হলে বিজ্ঞ আদালত তাদেরকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

প্রসঙ্গত, র‌্যাব ৭ ও র‌্যাব ১৫ এর অভিযানে সহস্রাধিক সদস্য অংশ নেয়। এসময় তাদের অভিযানে আটকরা হলেন- জঙ্গি সংগঠনের সদস্য সৈয়দ মারুফ আহমদ মানিক(৩১), ইমরান হোসাইন শাওন(৩১), কাওসার(৪৬), জাহাঙ্গীর আহম্মেদ(২৭), মো. ইব্রাহিম(১৯), আবু বক্কর সিদ্দীক বাপ্পী(২৩), পলক মিয়া(২৬) এবং পাহাড়ের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন কেএনএফ’র সদস্য জৌখান স্যাং বম(১৯), স্টিফেন বম(১৯), মাল সম বম(২০)।

অভিযানকালে প্রশিক্ষণ ক্যাম্প থেকে ৯টি বন্দুক, বন্দুকের ৫০ রাউন্ড গুলি, কার্তুজ কেইস ৬২টি, হাত বোমা ৬টি, কার্তুজ কেইস ১টি, কার্তুজ বেল্ট ২টি, দেশীয় পিস্তল ১টি, ওয়াকিটকি সেট ১টি, চার্জার ৩টি, কুকিচিং লিখা ১০ টি মানচিত্র এবং অস্ত্র গোলা বারুদ তৈরির বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।