পাকিস্তানে রাজনৈতিক সহিংসতা হস্তক্ষেপ করবে না সেনাবাহিনী: জেনারেল মুনির - Southeast Asia Journal

পাকিস্তানে রাজনৈতিক সহিংসতা হস্তক্ষেপ করবে না সেনাবাহিনী: জেনারেল মুনির

পাকিস্তানে রাজনৈতিক সহিংসতা হস্তক্ষেপ করবে না সেনাবাহিনী: জেনারেল মুনির
“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

পাকিস্তানে আগামী সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে জাতীয় নির্বাচন। অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এই নির্বাচনকে ঘিরে দক্ষিণ এশিয়ার এই দেশটিতে রাজনৈতিক সহিংসতার আশঙ্কা রয়েছে।

তবে সেনাবাহিনী দেশে কোনও ধরনের রাজনৈতিক সহিংসতা হতে দেবে না জনিয়েছেন দেশটির সেনাপ্রধান জেনারেল আসিম মুনির। বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।

এদিকে সেনাবাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারা আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি নির্ধারিত ‘অসাধারণ গণতান্ত্রিক অনুশীলনে’ নাশকতার যে কোনও প্রচেষ্টাকে ব্যর্থ করার সংকল্প করেছেন বলে বুধবার জানিয়েছে পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর মিডিয়া উইং।

রাওয়ালপিন্ডিতে পাকিস্তানের সেনা সদর দপ্তরে অনুষ্ঠিত কর্পস কমান্ডার সম্মেলনে এটি জানানো হয়। আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর মিডিয়া উইং ইন্টার-সার্ভিস পাবলিক রিলেশন্সের (আইএসপিআর) জারি করা এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সেনাপ্রধান (সিওএএস) জেনারেল সৈয়দ আসিম মুনিরের সভাপতিত্বে এই ফোরামে সাধারণ নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে পরিচালনা করতে পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশনকে (ইসিপি) সহায়তা করার জন্য সেনাবাহিনী মোতায়েন নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

  • আন্তর্জাতিক অন্যান্য খবর জানতে এখানে ক্লিক করুন।
  • ফেসবুকে আমাদের ফলো দিয়ে সর্বশেষ সংবাদের সাথে থাকুন।

এতে বলা হয়েছে, ‘পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ইসিপির নির্দেশনা অনুসারে সাংবিধানিক আদেশ অনুযায়ী অর্পিত দায়িত্ব পালন করবে। রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের নামে কাউকে সহিংসতায় লিপ্ত হতে এবং অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনকে বাধাগ্রস্ত করতে নাশকতা করতে দেওয়া হবে না।’

সেনাপ্রধান জেনারেল আসিম মুনির বলেছেন, পাকিস্তানের সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতা পবিত্র বিষয় এবং এটি অলঙ্ঘনীয়। তিনি বলেন, ‘পাকিস্তান সব রাষ্ট্রের সঙ্গে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানে বিশ্বাস করে; তবে দেশের সার্বভৌমত্ব, জাতীয় সম্মান এবং পাকিস্তানি জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার বিষয়ে কখনোই কোনও আপস করা হবে না।’

এদিকে পাকিস্তানের আগামী সপ্তাহের সাধারণ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামা এক সংসদ সদস্য প্রার্থীকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। দেশটির আসন্ন নির্বাচন ঘিরে জঙ্গি সহিংসতা বৃদ্ধির আশঙ্কার মাঝেই বুধবার আফগানিস্তানের সীমান্ত লাগোয়া উপজাতি অধ্যুষিত বাজুর জেলায় এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছিলেন গুলিতে নিহত রেহান জায়েব খান। তিনি পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের রাজনৈতিক দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) সমর্থিত প্রার্থী ছিলেন।

এছাড়া বুধবার দুর্নীতির এক মামলায় ইমরান খান ও তার স্ত্রী বুশরা বিবিকে ১৪ বছরের করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। পাকিস্তানের এবারের নির্বাচনে ইমরান খানের দলের ঐতিহ্যবাহী নির্বাচনী প্রতীক ক্রিকেট ব্যাট কেড়ে নেওয়া হয়েছে।

এ ছাড়া দলটির প্রার্থীরা স্বতন্ত্র হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।