পশ্চিমবাংলায় ভোট: কোচবিহারে পুলিশের গুলিতে নিহত ৫

“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভার চতুর্থ দফা ভোটে ব্যাপক সহিংসতা হয়েছে। কোচবিহারের শীতলকুচিতে ৫ জন নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার। এর মধ্যে ১ জন বিজেপির এবং ৪ জন তৃণমূলের কর্মী। ব্যাপক সহিংসতার মধ্য দিয়ে শনিবার (১০ এপ্রিল) সকাল থেকে চলছে চতুর্থ দফার বিধানসভা নির্বাচনের ভোট।

স্থানীয় এক তৃণমূল কর্মী সংবাদমাধ্যমে জানান, দলে দলে ভোট দিতে যাচ্ছিলেন মানুষ। সেই সময় বিনা প্ররোচনায় গুলি চালায় কেন্দ্রীয় বাহিনী।

স্থানীয় তৃণমূল কর্মীদের অভিযোগ, সিআরপিএফ জওয়ানরা বিজেপি-র হয়ে কাজ করছে। রাতভর মদ-মাংস খেয়ে সকালে নির্বিচারে গুলি চালিয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচন করানোর ভার যাদের কাঁধে, তাঁদের নির্বিচারে গুলি চালানোর অধিকার কে দিয়েছে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে জোড়াফুল শিবির।

বুথের ভিতরে যে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন ছিল, তারাই এই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে তৃণমূল। অন্য দিকে, তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যাওয়া নিশীথ প্রামামিক এই ঘটনার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দায়ী করেছেন।

তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে যে ভাবে লাগাতার উস্কানিমূলক মন্তব্য করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তার জন্য মানুষ কেন্দ্রীয় বাহিনীকে আক্রমণ করেন। তাতেই গুলি চালাতে বাধ্য হয়েছে সিআইএসএফ।

এদিকে, চুঁচুড়ায় হামলায় হাতে আঘাত পেয়েছেন বিজেপির প্রার্থী অভিনেত্রী লকেট। এ ঘটনায় তৃণমূলকে দায়ী করেছেন তিনি।

আজ ৫ জেলার ৪৪ আসনে প্রার্থী নির্বাচনে ভোট দিচ্ছেন এক কোটির বেশি ভোটার। ১৬ হাজারের বেশি পোলিং স্টেশনে নিরাপত্তা নিশ্চিতে মোতায়েন করা হয়েছে সেন্ট্রাল আর্মড পুলিশ ফোর্সের ৮০ হাজার সদস্য। হাওড়া, হুগলি এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনার পাশাপাশি উত্তরবঙ্গ ও আলিপুর-দুয়ার, কোচবিহারে ভোট হচ্ছে। এতে প্রার্থীর সংখ্যা ৩৭০ জনের বেশি। এর মধ্যে রয়েছেন বেশ কজন তারকা প্রার্থী।

তবে, টালিগঞ্জে দুই মন্ত্রীর হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অরূপ বিশ্বাস আর বাবুল সুপ্রিয়র লড়াই নিয়ে চলছে বেশ সরগরম আলোচনা।

এবারের ভোটে কলকাতার কয়েকটি আসনেই হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাস পাওয়া গেছে। রয়েছেন বহু শিল্পী ও তারকা প্রার্থী।