প্রায় ২কোটি টাকার অবৈধ মাদকদ্রব্য ধ্বংস করলো ৪৩ বিজিবি - Southeast Asia Journal

প্রায় ২কোটি টাকার অবৈধ মাদকদ্রব্য ধ্বংস করলো ৪৩ বিজিবি

“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

খাগড়াছড়ির রামগড়স্থ ৪৩ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের (রামগড় জোন) আওতাধীন চট্টগ্রাম উত্তরের বিভিন্ন বিওপি কর্তৃক অভিযান চালিয়ে উদ্ধারকৃত প্রায় ২ কোটি টাকা মূল্যের মালিকবিহীন বিপুল পরিমান মাদকদ্রব্য ধ্বংস করা হয়েছে।

সকালে চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার বাগানবাজার উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত মাদকদ্রব্য ধ্বংসকরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রামের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আওলাদ হোসাইন মুহাম্মদ জোনাইদ।

অনুষ্ঠানে ৪৩ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্নেল আবু বকর সিদ্দিক সাইমুম এর সভাপতিত্বে বিজিবির চট্টগ্রাম দক্ষিন-পূর্ব রিজিয়নের পরিচালক (অপারেশন), ৮ বিজিবি অধিনায়ক লেঃ কর্নেল শাহেদ মিনহাজ, ২৩ বিজিবি অধিনায়ক লেঃ কর্নেল আলমগীর কবির, ৪০ বিজিবি অধিনায়ক লেঃ কর্নেল ফারাহ্ মোহাম্মদ ইমতিয়াজ, গুইমারা বিজিবি হাসপাতালের অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোঃ আবু সাইদুজ্জামান, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ আবদুল মালেক, হাটহাজারী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, রামগড় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদীপ কুমার কারবারি, ফটিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাব্বির রহমান সানি, রামগড় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মমতা আফরিন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এর সহকারী পরিচালক, রামগড় উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার, রামগড় থানার ওসি মিজানুর রহমান, ফটিকছড়ি থানার ওসি রবিউল ইসলাম, বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ এবং স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

বিজিবি জানায়, ২০১৬ সাল থেকে অদ্যাবধি পর্যন্ত চট্টগ্রাম জেলার সীমান্ত এলাকা হতে মালিকবিহীন অবস্থায় উদ্ধারকৃত বিভিন্ন প্রকার মাদকদ্রব্যে ধ্বংস করা হয় এদিন।

এর মধ্যে ছিল, ৭২৫১ বোতল ভারতীয় বিভিন্ন প্রকার মদ, ২৬৯ বোতল ভারতীয় বিয়ার ক্যান, ১৯২৭ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিল, ৯৮৭৮ পিস ভারতীয় ইয়াবা ট্যাবলেট, ৪০৯.৩৬ কেজি ভারতীয় গাঁজা, ২০৮.২৫ লিটার ভারতীয় চোলাই মদ, ৪০ পিস টার্গেট ট্যাবলেট, ৪০ পিস সেনেগ্রা ট্যাবলেট ও ৫০০ পিস নিমসোলাইড ট্যাবলেট।

বিজিবি সূত্র আরো জানায়, ধ্বংসকৃত এসব মাদকদ্রব্যের আনুমানিক বাজারমূল্য ১ কোটি ৬১ লক্ষ ৯৮ হাজার টাকা।

এসময় ৪৩ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্নেল আবু বকর সিদ্দিক সাইমুম, মাদকদ্রব্য পাচার রোধে বেসামরিক প্রশাসন ও অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি মিডিয়াকর্মীসহ সকলস্তরের নাগরিকদের ঐকান্তিক সহযোগিতা কামনা করেন।