বিজয়ের মাস উপলক্ষে বাকলাই পাড়ায় আন্তঃপাড়া ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত - Southeast Asia Journal

বিজয়ের মাস উপলক্ষে বাকলাই পাড়ায় আন্তঃপাড়া ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত

“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

বান্দরবানের থানচি ও রুমা দুই উপজেলার সীমান্তবর্তী বাকলাইয়ে বিজয়ের মাস উপলক্ষে আন্তঃপাড়া ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার ( ২৬ ডিসেম্বর ) সকালে বাকলাই পাড়া সেনা ক্যাম্পের মাঠে শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে টুর্নামেন্টের শুভ উদ্বোধন করেন বাকলাই সেনা সাবজোনের অধিনায়ক মেজর মহেববুল্লাহ্ সাদী।

১৬ ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে বান্দরবান সেনা রিজিয়নের আয়োজনে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় বাকলাই সেনা সাবজোনের আশে পাশে রুমা-থানচি দুই উপজেলার ১৩টি বম পাড়ার ফুটবল প্রেমী যুবকরা।

সাধারণত ডিসেম্বর মাসে স্কুল ছুটি এবং শুভ বড়দিনে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বাড়িতে আসা শিক্ষার্থীরা স্বতঃস্ফূতভাবে এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন।

আয়োজকরা জানান, বাকলাই সেনা সাবজোনের পক্ষে থেকে অংশগ্রহণকারী ১৩টি বম পাড়ার ১১ জন করে খেলোয়াড়কে জার্সি ও প্রতিটি দলের জন্য একটি করে ফুটবল উপহার দেওয়া হয়েছে।

টুর্নামেন্টে অংশ নেয়, বাকলাই পাড়া একাদশ, প্রাতা পাড়া একাদশ, বাসিরাম পাড়া একাদশ, কুংহ্লা ম্রো পাড়া একাদশ, কাইথান ম্রো পাড়া একাদশ, সিত্লাংপি বম পাড়া একাদশ, শেরকর বম পাড়া একাদশ, ডুলিচাণ পাড়া একাদশ, নয়াচরণ পাড়া একাদশ, হানজরই পাড়া একাদশ, ধোনারাম পাড়া একাদশ , বল্লম পাড়া একাদশ ও বঙ্কু ম্রো পাড়া একাদশ।

উদ্বোধনী খেলায় অংশ নেয় বাকলাই পাড়া একাদশ বনাম প্রাতা পাড়া একাদশ। এ খেলার মধ্যে দিয়ে বাকলাইপাড়া সাব জোন আন্তঃপাড়া ফুটবল টুর্নামেন্ট প্রতিযোগিতার শুভ সূচনা হয়েছে।

এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাকলাই সেনা সাবজোনের অধিনায়ক মেজর মহেববুল্লাহ্ সাদী। তিনি বলেন, খেলার মাঠে আমাদের মধ্যে কোন প্রকার বৈষম্য নেই। বরং আমরা সবাই খেলোয়াড়। ফুটবলের মাধ্যমে বিভেদ নয় বরং ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। সকলকে একযোগে কাজ করে ফুটবলকে আরও সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। ফুটবলের মাধ্যমে পাহাড়ের সাম্প্রদায়িক-সম্প্রীতি সুদৃঢ় করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সময়ে গ্রাম গঞ্জে মাঠে-ঘাটে খেলাধুলা বিষয়টি বিলুপ্তির পথে। যে বয়সে তরুণ প্রজন্মদের মাঠে থাকার কথা সে বয়সে তারা অন্যথায় অপ্রয়োজনে সময় নষ্ট করে বিপথগামী হচ্ছে। খেলার মাঠ যেমন শারীরিক কাঠামো বজায় রাখার জন্য বিশেষ ভূমিকা পালন করে পাশাপাশি মনকে প্রফুল্ল রাখতেও সাহায্য করে।

তিনি বলেন, খেলাধুলা চর্চার সঙ্গে জড়িত থাকলে কোন যুবক-যুবতী অসামাজিক কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হতে পারে না। তাই যুব সমাজকে লেখাপড়ার পাশাপাশি সাহিত্য সংস্কৃতি ও খেলাধুলার মাঠে ফিরিয়ে নিতে হবে। তবেই জাতিকে কিছু দেয়া সম্ভব হবে। আজকের এই খেলার মধ্য দিয়ে আমরা সাম্যের গীত গিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে চাই। পাশাপাশি ভবিষ্যতে এধরনের খেলা চলমান রাখার আশ্বাস দেন।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ৩ নং থানচি সদরের চেয়ারম্যান অং প্রো ম্নো, ইউপি মেম্বার জীবন ত্রিপুরা ও ইউপি মেম্বার কোয়াল কার বম । এছাড়াও বাকলাই পাড়া সাবজোনের অফিসার, জেসিও, সেনা সদস্যবৃন্দ ও ক্রীড়া প্রেমী মানুষরা উপস্থিত ছিলেন।