যারা আমার নিরাপত্তা দেন, তারাও যথেষ্ট ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেন- প্রধানমন্ত্রী

যারা আমার নিরাপত্তা দেন, তারাও যথেষ্ট ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেন- প্রধানমন্ত্রী

যারা আমার নিরাপত্তা দেন, তারাও যথেষ্ট ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেন- প্রধানমন্ত্রী
“এখান থেকে শেয়ার করতে পারেন”

Loading

নিউজ ডেস্ক

নিজের জীবনটা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার (৭ জুলাই) ঢাকা সেনানিবাসে ‘প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্ট’ (পিজিআর)-এর ৪৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে এদিন প্রধানমন্ত্রী পিজিআর এর সকল সদস্যের উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমার জীবনটা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ৷ আর যারা আমার নিরাপত্তা দেন, তারাও যথেষ্ট ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে থাকেন।’ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিষ্ঠার সঙ্গে রাষ্ট্রপতির বিদেশ ভ্রমণ, সাধারণ যাতায়াত, চিকিৎসা সহায়তা ও জরুরি চিকিৎসাসেবা এবং আতিথেয়তা পরিষেবাসহ সব ধরনের নিরাপত্তার দায়িত্ব পালনের জন্য পিজিআরের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, পিজিআরের নেতৃত্ব ও নিরাপত্তা অত্যন্ত প্রশংসার দাবি রাখে।

যারা আমার নিরাপত্তা দেন, তারাও যথেষ্ট ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেন- প্রধানমন্ত্রী

ফোর্সেস গোল-২০৩০ ধাপে-ধাপে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে জানিয়ে সরকারপ্রধান বলেন, পিজিআরের এখন এপিসিসহ আধুনিক সরঞ্জাম যোগ করা হয়েছে। এর অপারেশনাল দক্ষতা বাড়াতে সরঞ্জামাদি যেমন বেড়েছে; তেমনি এই রেজিমেন্টের সদস্যসংখ্যাও বাড়ানো হয়েছে।

তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালের ৫ জুলাই স্বাধীন বাংলাদেশের রূপকার সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশনায় গঠিত হয় প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্ট। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্ট দেশ এবং বিদেশ হতে আগত রাষ্ট্রে প্রধান ও সরকার প্রধান এবং রাষ্ট্র ঘোষিত যেকোন অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের দৈহিক নিরাপত্তাসহ সকল প্রকার রাষ্ট্রাচার কার্য অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে পালন করে আসছে বলে তিনি তাঁর বক্তব্যে উল্লেখ করেন।

এছাড়া, প্রধানমন্ত্রী পিজিআর সদস্যগণ কর্তৃক পেশাগত দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে যে পরিশ্রম, দক্ষতা, কর্তব্যপরায়ণতা ও ত্যাগের দৃষ্টান্ত স্থাপন করা হয়েছে, তার ভূয়সী প্রশংসা করেন।

এর আগে, ৪৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পিজিআর সদর দপ্তরে আগমন করলে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান এবং কমান্ডার পিজিআর তাঁকে অভ্যর্থনা জানান।

যারা আমার নিরাপত্তা দেন, তারাও যথেষ্ট ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেন- প্রধানমন্ত্রী

এরপর পিজিআর এর একদল চৌকস গার্ড মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে রাষ্ট্রীয় সালাম প্রদান করে। প্রধানমন্ত্রী পিজিআর এর কোয়ার্টার গার্ড পরিদর্শন শেষে পরিদর্শন বইয়ে স্বাক্ষর করেন এবং এই রেজিমেন্টের উপস্থিত সকল অফিসার, জুনিয়র কমিশন্ড অফিসারদের সাথে কুশলাদি বিনিময় করেন।

এছাড়াও, শহিদ ক্যাপ্টেন হাফিজ হলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রেজিমেন্টে কর্মরত অবস্থায় নিহত শহিদ সদস্যদের পরিবার ও স্বজনদের সাথে সাক্ষাৎ করেন এবং তাদের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ ও অনুদান হস্তান্তর করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা, সেনা, নৌ ও বিমান প্রধানগণ, ঊর্ধ্বতন সামরিক ও অসামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

  • অন্যান্য খবর জানতে এখানে ক্লিক করুন।
  • ফেসবুকে আমাদের ফলো দিয়ে সর্বশেষ সংবাদের সাথে থাকুন।